Tuesday, January 21

নগরভবনে হামলা: হকার্স লীগ সভাপতি রকিব গ্রেপ্তার



নগরভবনে হামলার ঘটনায় সিলেট সিটি করপোরেশনের দায়েরকৃত মামলায় মহানগর হকার্সলীগ সভাপতি আব্দুর রকিবকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। মঙ্গলবার রাত ১টার দিকে তাকে কতোয়ালি থানা এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়।

সিলেট কতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) গৌছুল হোসেন বলেন, রকিব মধ্যরাতে থানা এলাকায় আসে। সিসিটিভি ফুটেজে তাকে দেখতে পেয়ে সিসিকের মামলায় গ্রেপ্তার করা হয়।

সোমবার বিকেলে হকারদের বিক্ষোভ থেকে নগরভবনে হামলার ঘটনা ঘটে।  এঘটনায় মঙ্গলবার সিটি কর্পোরেশনের আইন সহকারী শ্যামল রঞ্জন দেব বাদি হয়ে কোতোয়ালী থানায় একটি মামলা দায়ের করেন (মামলা নং ১১)।  মামলায় মহানগর হকার্স লীগ সভাপতি আব্দুর রকিব সহ অজ্ঞাতনামা শতাধিক হকারকে আসামী করা হয়।

এদিকে, মঙ্গলবার দুপুরে নগরীর বন্দরবাজার এলাকায় ফুটপাত থেকে হকার উচ্ছেদের অভিযান চালান মেয়র আরিফুল হক। অপরদিকে, হকাররা পুনর্বাসনের পূর্ব পর্যন্ত ফুটপাতে ব্যবসা করার সুযোগ চেয়ে মঙ্গলবার সিলেটের জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি পেশ করেন।

জানা যায়, সোমবার বিকেলে সিটি করপোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ফুটপাত দখল না করতে হকারদের আহবান জানায়। এতে ক্ষুব্ধ হয়ে হকার্স লীগ নেতা আব্দুর রকিবের নেতৃত্বে হকারদের একটি দল বিক্ষোভ শুরু করে। তারা লাঠিসোটা নিয়ে বন্দরবাজার এলাকায় মিছিল করতে থাকে। সড়কে যান চলাচলেও বাধা দেয় হকাররা।

সিটি করপোরেশনের জনসংযোগ কর্মকর্তা শাহাব ইদ্দিন শিহাব অভিযোগ করেন, মিছিল থেকে হকাররা নগর ভবনে হামলা চালায় ও ইটপাটকেল নিক্ষেপ করে। মহানগর হকার্স লীগ সভাপতি আব্দুর রকিবের নেতৃত্বে শতাধিক হকার এ হামলা চালায় বলে অভিযোগ শিহাবের। এ সময় মেয়র আরিফ নগর ভবনে নিজের দপ্তরে ছিলেন। পরিস্থিতি সামাল দিতে তিনি এ সময় বাইরে বেরিয়ে আসলে শ্রমিকরা তাঁকে লক্ষ করেও ইটপাটকেল ছুড়তে থাকে।

হকাররা সিটি করপোরেশনের হিসাব কর্মকর্তা ম আ ন ম মনছুফ ও আরো তিন কর্মচারীকে লাঞ্ছিত করেছে বলেও জানান শিহাব।।

হামলার পর নগরভবনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ঐক্যবদ্ধ হয়ে হকারদের প্রতিহত করেন। এসময় হকাররা বন্দরবাজার এলাকা থেকে এসে জিন্দাবাজার-চৌহাট্টা সড়কে বিক্ষোভ মিছিল করে। লাঠিসোটাসহ এই মিছিলের মেয়র আরিফের বিরুদ্ধে স্লোগান দেয় তারা। এসময় কয়েকটি যানবাহন ভাঙচুর করে।

এ বিষয়ে সিটি মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী বলেছিলেনন, সিসিকের কর্মচারীরা ফুটপাতে না বসতে হকারদের অনুরোধ জানিয়েছিল। কিন্তু আব্দুর রকিবের নেতৃত্বে হকাররা সংঘবদ্ধ হয়ে নগর ভবনে হামলা চালায়। পরে সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মিলে তাদেরকে প্রতিহত করা হয়।

তবে হামলার অভিযোগ অস্বীকার করে সোমবার তবে হআব্দুর রকিব বলেন, সিটি কর্পোরেশনের কর্মচারীরা আমাকে মারধর করেছে। এ ঘটনার পর উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এছাড়াও মেয়রের নেতৃত্বে সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা বন্দরবাজারে শো-ডাউন দিয়ে হকারদের ওপর হামলা করে।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *