Tuesday, February 4

বিএনপিকে ‘বিদেশি নালিশ পার্টি’ বললেন কাদের



বিএনপিকে বিদেশি নালিশ পার্টি হিসেবে আখ্যায়িত করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। তিনি বলেছেন, বিএনপি মানে বি’তে বিদেশি, এন’তে নালিশ, পি’তে পার্টি। এটার নাম নালিশ পার্টি।

রোববার সকালে নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদ চত্বরে নোয়াখালী -৫ আসনের ২৭ টি প্রকল্পের ৪২ কোটি টাকার বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

কাদের বলেছেন, বিএনপি একটি আত্মস্বীকৃত দুর্নীতিবাজ দল। বেগম জিয়ার মামলার রায়ের ১০ দিন আগে বিএনপি রাতের আঁধারে গঠনতন্ত্রের ৭ ধারা উঠিয়ে নিয়ে বিএনপি প্রমাণ করেছে তারা দুর্নীতিবাজ। তাদের নেতারা পল্টনে দলীয় কার্যালয়ে বসে প্রেসব্রিফিং করছে, বাহিরে আন্দোলন করার মুরোদ নেই।

কাদের বলেন, আমরা ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সঙ্গে বৈঠক করেছি। কিন্তু আমাদের দেশের রাজনীতির ব্যাপারে আলাপ আলোচনা কিছুই হয়নি। রাজনীতি নিয়ে বিদেশে কিসের কথা! আমাদের দেশের রাজনীতি নিয়ে দেশে কথা বলব। অথচ বিএনপি নেতারা আমাদের দেশের রাজনীতি নিয়ে বিদেশিদের কাছে গিয়ে নালিশ করে। বিএনপি একটি নালিশের দলে পরিণত হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, বেগম জিয়াকে দণ্ড দিয়েছেন আদালত। এখানে আওয়ামী লীগের কিছুই করার নেই। আইনের মাধ্যমে তিনি মুক্তি পাবেন। পত্রিকায় দেখলাম বেগম জিয়া বলেছেন, বিএনপি নেতাদের নির্বাচনী প্রস্তুতি নেওয়ার জন্য। আর নেতারা বলছেন বেগম জিয়া ছাড়া নির্বাচনে যাবেন না।

সেতুমন্ত্রী বলেন, ৭৫ এর পরে বিএনপি, জাতীয়পার্টি দীর্ঘদিন ক্ষমতায় ছিল। সেই সময় মওদুদ ভাই বড় বড় দায়িত্বে ছিলেন। কিন্তু আমি এ এলাকায় যত উন্নয়ন করেছি, তিনি তার একশ ভাগের একভাগও করেন নাই। তার বাড়ির সামনের রাস্তাটাও আমি পাকা করে দিয়েছি।

ওবায়দুল কাদের আরও বলেন, নারী সমাজের সারাজীবন শেখ হাসিনা সরকারকে সমর্থন করা উচিত। কারণ শেখ হাসিনা তাদের নাম ঠিকানায় পিতার সঙ্গে মায়ের নাম সংযুক্ত করেছেন। আমি যদি নির্বাচন করি আগামী নির্বাচনে, আমার নেতাকর্মীরা সেই নির্বাচন করবে। কারণ আমি সারা বাংলাদেশের নির্বাচনী কাজে ব্যস্ত থাকব।

কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বাদলের সভাপতিত্বে ও উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আজম পাশা চৌধুরী রুমেলের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন নোয়াখালী জেলা প্রশাসক মাহবুব আলম তালুকদার, পুলিশ সুপার মো. ইলিয়াছ শরীফ, বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আবদুল কাদের মির্জা, নোয়াখালী জেলা পরিষদের সদস্য আকরাম উদ্দিন চৌধুরী সবুজ, কোম্পানীগঞ্জ উপজেলা আ. লীগের সভাপতি মুুক্তিযোদ্ধা খিজির হায়াত খান, সাধারণ সম্পাদক নুর নবী চৌধুরী প্রমুখ।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *