Saturday, January 18

মস্কোতে ‘গোপন’-এর জন্য পুরস্কৃত আশরাফ শিশির



গাড়িওয়ালা’ নির্মাণ করে রীতিমত হইচই ফেলে দিয়েছিলেন নির্মাতা আশরাফ শিশির। ইমপ্রেস টেলিফিল্মের পরিবেশনায় তার নির্মিত ছবিটি ৬টি মহাদেশের ২৬টি দেশের প্রায় ৮০টি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয় এবং কয়েকটি উৎসবে পুরস্কার অর্জন করে। আর এবার ‘গোপন’ নিয়ে শুরু হয়েছে তার নতুন জার্নি।

রাশিয়ার মস্কোতে ‘২০তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-ডিটেকটিভফেস্ট’-এর প্রতিযোগিতা পর্বে অংশ নিয়েছিলো আশরাফ শিশিরের থ্রিলারধর্মী পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র ‘গোপন- দ্য ইনার সাউন্ড’। ২৩ এপ্রিল থেকে শুরু হওয়া এই চলচ্চিত্র উৎসবের পর্দা নামে ২৭ এপ্রিল। আর এদিন ‘গোপন’ ছবির জন্য আশরাফ শিশিরের হাতে উঠে ‘স্পেশাল মেনশন অ্যাওয়ার্ড’।

এমনটাই রাশিয়া থেকে চ্যানেল আই অনলাইনকে জানিয়েছেন আশরাফ শিশির। ইউনিয়ন অব সিনেমাটোগ্রাফারস ডোম কিনো কেন্দ্রে ২০তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব-ডিটেকটিভফেস্টের পর্দা নামে।

৭১টি দেশের ৬০০ চলচ্চিত্রের মধ্যে ১৮টি চলচ্চিত্র ফিচার ফিল্ম বিভাগে প্রদর্শনী হয়। ‌আয়োজকদের পাশাপাশি এ উৎসবের যৌথ আয়োজনে ছিল স্থানীয় সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয় এবং আন্তর্জাতিক পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন। আর এমন প্রেস্টিজিয়াস আসরে পুরস্কৃত হওয়ায় বেশ উচ্ছ্বসিত নির্মাতা।

তবে ‘গোপন’ নিয়ে এই প্রথম কোনো আন্তর্জাতিব চলচ্চিত্র উৎসবে যাত্রা করেননি আশরাফ শিশির। বরং এর আগে সম্প্রতি অনুষ্ঠিত ‘৩৬তম ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যাল অব উরুগুয়ে’তে প্রদর্শিত হওয়া ছাড়াও ভারত, নেপাল, কানাডা, ইতালি, স্পেন, চিলি, বেলজিয়াম, উরুগুয়ে, প্যারাগুয়ে, রাশিয়া মোট ১০টি দেশের ১৪টি আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে প্রদর্শিত হয়েছে এবং ‘দিল্লী আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব’-এ আন্তর্জাতিক ক্যাটাগরি ‘অ্যাক্রস দ্য বর্ডার’ বিভাগে শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র হিসাবে পুরস্কার লাভ করে।

থ্রিলারধর্মী ছবিটিতে আন্ডারগ্রাউন্ড পলিটিক্সে জড়িয়ে যাওয়া এক পিতা, তার হারিয়ে যাওয়া স্ত্রী এবং একমাত্র কন্যাসন্তানের বিবর্তন, একজন জনপ্রিয় লেখিকার জীবনে মনস্তাত্বিক অসহায়ত্বের মাঝে একজন ফ্লপ ছবির নির্মাতার আগমন কিভাবে কয়েকটি খুন আর নতুন কিছু স্বপ্নের জন্ম দেয় – তা দেখানো হয়েছে। ছবিতে অভিনয় করেছেন সুমনা সোমা, কাবেরী, ইমরান, লাবন্য ক্যাটরিনা, আনন জামান, সেরাজুল ইসলাম, সৌরভ তোফাজ্জল, আবুল কালাম আজাদ, মান্নাফ কাইজার, দেবীপ্রসাদ, মিলা, দীপ, বিউটি, উজ্জ্বল, ফেরদৌস রেজা, রুদ্রনীল, শুভ সহ চারশ’ নাট্যকর্মী।

শিশুশিল্পীরা হল রাজকন্যা, দূর্বা, কিন্নর ও রনন। চলচ্চিত্রটির সংগীত পরিচালনা করেছেন রাফায়েত নেওয়াজ এবং চিত্রগ্রহণ ও সম্পাদনা করেছেন সাব্বির মাহমুদ। গোপন প্রযোজনা করেছে মিডিয়াএইড বাংলাদেশ, কানাডিয়ান মিডিয়া এন্টারটেইন্টমেন্ট ইনক এবং ডিজিসুগার।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *