Saturday, January 18

যুক্তরাষ্ট্র চুক্তি বাতিল করলে যুদ্ধ হবে : ফ্রান্স



ব্রিটেনের পর ফ্রান্সও এবার ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা রক্ষার পক্ষে দাঁড়াল। স্পষ্ট হুঁশিয়ারি দিয়ে ফরাসি প্রেসিডেন্ট ইম্মানুয়েল ম্যাঁক্রো বলেন, ২০১৫ সালে  সই হওয়া ইরান চুক্তি মানতেই হবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে। যদি তা না হয়, তাহলে যুদ্ধ বেধে যাবে।

তিনি বলেছেন ফ্রান্স আশা করে যুক্তরাষ্ট্র যুদ্ধ চায়না। আর তাই ইরানের সঙ্গে করা চুক্তি বাতিলের পথে হাঁটবে না তাঁরা। জার্মানির একটি পাক্ষিক পত্রিকায় সাক্ষাৎকারে একথা জানিয়েছেন  ফারসি প্রেসিডেন্ট।

২০১৫ সালে সুইজারল্যান্ডে চীন, রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন, জার্মানি ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র- এই ছয়টি দেশ ইরানকে পারমাণবিক অস্ত্র বানানোর কর্মসূচি থেকে সরে আসার আবেদন করে। একইসঙ্গে বিশ্বের গঠনমূলক অর্থনীতিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে ইরানকে তেল উৎপাদন ও অন্যান্য শিল্পে গুরুত্ব দেওয়ার কথা বলে।

এজন্য ইরানকে ১১০ বিলিয়ন ডলার দেওয়ার প্রস্তাব দেয় ওই ছয়টি দেশ। প্রস্তাবটি ইরান গ্রহণ করায় পারমাণবিক অস্ত্র কর্মসূচির জন্য ইরানের ওপর আরোপিত অর্থনৈতিক নিষেধাজ্ঞাও শিথিল করে ওই দেশগুলো।

তবে মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতায় আসার পর থেকেই চুক্তিটির বিরোধিতা করে আসছেন। চুক্তিটির যাতে পুনর্নবীকরণ না করা হয়, তার জন্যও দাবি জানিয়েছেন। ব্রিটেন, ফ্রান্স, ও জার্মানি প্রথমে ট্রাম্পের পক্ষে থাকলেও এখন তারা সে অবস্থান সরে এসেছে। এবং ইরানের সঙ্গে পরমাণু সমঝোতা বাতিল না করার জন্য যুক্তরাষ্ট্রকে আহবান জানাচ্ছে।

এরআগে, ইরান চুক্তি বাতিল করা হলে পরিণাম খারাপ হবে বলে হুঁশিয়ারি দেয় ইরান। ইরানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী জাভেদ জারিফ হুঁশিয়ারি দিয়েছেন, যুক্তরাষ্ট্র যদি চুক্তি থেকে সরে আসে তবে এবার আরও বৃহৎ আকারের শক্তি নিয়ে পারমাণবিক কর্মসূচি শুরু করবেন তারা।

তবে ব্রিটেন, ফ্রান্স, জার্মানি, চীন ও রাশিয়াসহ আন্তর্জাতিক শক্তি গুলি কিন্তু চুক্তিটির পক্ষেই রয়েছে। এ চুক্তি ছাড়া আর বিকল্প কোনও পথ নেই উল্লেখ করে ফরাসি প্রেসিডেন্ট বলেন, ইরানের সাথে সম্পর্কের ক্ষেত্রে চুক্তিটি সঠিক নয়, তবে ইরানকে পারমাণবিক নিরস্ত্রকরণের প্রশ্নে এ চুক্তির কোনো বিকল্পও নেই।

সূত্র: রয়টার্স

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *