Monday, January 20

শিল্পমন্ত্রীর চামড়া তত্ত্ব হাস্যকর বলছে বিএনপি



নিউজ ডেস্ক :
এবারের ঈদুল আজহায় কোরবানির পশুর চামড়ার নজিরবিহীন দরপতন ঘটেছে। এজন্য সংশ্লিষ্টরা সিন্ডিকেটকে দায়ী করলেও সরকারের শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন দায় চাপিয়েছেন বিএনপির ঘাড়ে। তার অভিযোগ, সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে বিএনপিই কোরবানি পশুর চামড়া কিনে ফেলে দিয়েছে। মন্ত্রীর এ ‘তত্ত্ব’কে ‘হাস্যকর ও আজগুবি’ বলছে বিএনপি। মন্ত্রীর এ ধরনের মন্তব্য ‘অর্বাচীনের মতো কথা’ বলেও দাবি পাল্টা অভিযোগ বিএনপির শীর্ষ নেতৃত্বের।
রোববার (১৮ আগস্ট) বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে এক অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন বলেন, ‘সরকারকে বেকায়দায় ফেলতে চট্টগ্রামে ৩০ ট্রাক চামড়া কিনে ফেলে দিয়েছে বিএনপি। এ খাতে ভবিষ্যতে যেন এ ধরনের বিশৃঙ্খলার সুযোগ কেউ নিতে না পারে, সেজন্য টেকসই পদক্ষেপ নিতে হবে।’
সোমবার (১৯ আগস্ট) দুপুরে স্বেচ্ছাসেবক দলের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর জিয়ারত ও সেখানে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানানোর পর এই বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, ‘এ ধরনের অর্বাচীনের মতো কথা বলা ছাড়া তাদের তো আর কোনো কিছু করার নেই। তারা দেশ চালাতে সম্পূর্ণ ব্যর্থ হয়েছেন। একটি অনির্বাচিত সরকার দেশ চালাতে পারে না। জনগণের ম্যান্ডেট তাদের প্রতি নেই। পার্লামেন্ট বলুন আর সরকারেই বলুন জনগণের প্রতিনিধি নেই।’
এ বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘বিএনপি চামড়া ফেলে দিলে তারা তখন ধরেননি কেন? আসলে তিনি মন্ত্রিত্ব টিকিয়ে রাখার জন্য এ ধরনের আজগুবি কথা বলেছেন। এটা তাদের চিরাচরিত স্বভাব। নিজেদের ব্যর্থতা আড়াল করার জন্য সবকিছুতে বিএনপির ঘাড়ে দোষ চাপানোর অভ্যাস থেকেই তিনি এ ধরনের কথা বলেছেন।’
গয়েশ্বর আরও বলেন, ‘বিএনপি যে চামড়া কিনে নদী ফালাইলো সেটা কে দেখেছে? যদি দেখেই থাকে তাহলে তখনই কেন ধরলো না? এখন কেন এমন কথা বলছে। চামড়াতো ফালাইছে এক সপ্তাহ আগে। এসব আলতু-ফালুত কথার কোনো দাম নাই।’
বিএনপি সরকারের সাবেক এ মন্ত্রী বলেন, ‘উনিতো (নুরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন) নতুন মন্ত্রী হইছেন। তার পদতো টিকিয়ে রাখতে হবে। সেজন্য এসব আজগুবি কথা বলেছেন। কাদের কারণে চামড়ার এই অবস্থা সেটা দেশের জনগণ দেখেছে। জনগণকে এতো বোকা ভাবা ঠিক না। বিএনপির ঘাড়ে দোষ চাপিয়ে দিলেই যে জনগণ তা মেনে নেবে এমনটি মনে করার কোনো কারণ নাই।’
এ বিষয়ে জানতে চাইলে বিএনপির স্থায়ী কমিটির আরেক সদস্য ও সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বলেন, ‘এমন একটা হাস্যকর কথা উনি (শিল্পমন্ত্রী) বলেছেন যে, এ ধরনের কথার উত্তর দেওয়ারই কোনো প্রয়োজন আছে বলে আমি মনে করি না।’

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *