Sunday, January 19

সিলেট অঞ্চলে বজ্রপাতের পরিমাণ সবচেয়ে বেশি



দেশে গত কয়েক বছর ধরেই দেখা যাচ্ছে বজ্রপাতে অনেক প্রাণহানি ঘটছে। সর্বশেষ সোমবার (৩০ এপ্রিল) সারাদেশে বজ্রপাতে ৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এর মধ্যে নারায়ণগঞ্জে ২ জন, রাজবাড়ীতে ১, হবিগঞ্জে ১, রাজশাহীতে ১, ঈশ্বরদীতে ১ ও মৌলভীবাজারে ১ জন।

চলতি মাসে এ নিয়ে বজ্রপাতে নিহতের সংখ্যা প্রায় ৫০ ছাড়িয়ে গেছে বলে জানিয়েছে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কর্তৃপক্ষ। বছরের এ সময়টিতে বৃষ্টি হওয়ার সাথে বজ্রপাতও হয় ব্যাপকহারে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আবহাওয়া বিজ্ঞান বিভাগের প্রধান অধ্যাপক তাওহিদা রশিদ বিবিসির এক প্রতিবেদনে বলেন, ‘বজ্রপাত বেড়ে যাওয়ার কারণ হিসেবে তাপমাত্রা বৃদ্ধির একটি সম্পর্ক আছে।’

তাওহিদা রশিদ আরও বলেন, ‘বিজ্ঞানীরা অনেকে মনে করেন বিশ্বব্যাপী তাপমাত্রা বৃদ্ধির জন্য এটা বেশি হচ্ছে, তবে অনেক বিজ্ঞানীই আবার এ মতের সাথে একমত নন।

তবে বাংলাদেশে আমরাও ভাবছি জলবায়ু পরিবর্তনের কারণেই তাপমাত্রা বেড়েছে এবং এর কিছুটা হলেও প্রভাব পড়েছে। বাংলাদেশে দশমিক ৭৪ শতাংশ তাপমাত্রা বেড়েছে।’

বিকেলে বজ্রপাত হওয়ার হার বেশি। এ বিষয়ে তাওহিদা রশিদের মতে বজ্রপাতের ধরনই এমন। সকালের দিকে প্রচণ্ড তাপমাত্রা হয়। আর তখন এতে অনেক জলীয় বাষ্প তৈরি করে। এ জলীয় বাষ্পই বজ্র ঝড় ও বজ্রপাতের প্রধান শক্তি। তাপমাত্রা যত বাড়বে তখন জলীয় বাষ্প বা এ ধরনের শক্তিও তত বাড়বে।

এই অধ্যাপক বলেন, ‘জলীয় বাষ্প বেড়ে যাওয়া মানেই হলো ঝড়ের ঘনত্ব বেড়ে যাওয়া। বছরে এক ডিগ্রি তাপমাত্রা বাড়ার কারণে ১২শতাংশ বজ্র ঝড় বাড়ার সম্ভাবনা রয়েছে, এটি কোনো কোনো বিজ্ঞানী প্রমাণ করেছেন।

শেয়ার করুন:

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *