Sunday, January 19

Day: April 14, 2018

ছয় শহীদ সন্তানের গর্বিত জননী এখন ভিক্ষুক

ছয় শহীদ সন্তানের গর্বিত জননী এখন ভিক্ষুক

এক্সক্লুসিভ
ডেস্ক রিপোর্ট:: মুক্তিযুদ্ধে স্বামী ও ৬ শহীদ সন্তানের জননী মেহেরজান বিবি, এখন ভিক্ষা করে বেঁচে আছেন। সব হারিয়ে তার ঠাঁই হয়েছে এখন ফেনী সদর উপজেলার ধর্মপুর আবাসন ও আশ্রয়ন প্রকল্পের ৩ নং ব্যারাকের ১১ নং কক্ষে। বয়সের ভারে ন্যুজ্ব ৮৮ বছর বয়স্কা অসহায় মেহেরজান বিবি প্রতিদিন মানুষের দুয়ারে দুয়ারে ভিক্ষা করেন। তাঁর দুঃখে ভারাক্রান্ত জীবন কাহিনী বলতে বলতে অঝোরে চোখ বেয়ে নেমে আসে বেদনার অশ্রু। নিজে কাঁদেন এবং অন্যকেও কাঁদান। এই বয়সে দুই বগলে স্টেচারে ভর দিয়ে গ্রামের দ্বারে দ্বারে দু’মুঠো ভিক্ষার জন্য ঘুরে বেড়ান মেহেরজান। চরম অসহায়ত্বের মাঝে দিন কাটছে তাঁর। সহায় সম্বলহীন মেহেরজানের আকুতি এখন একটু বেঁচে থাকার। পৈতৃক নিবাস চাঁদপুর, সদর উপজেলার বাবুর হাটস্থ ২৬ নং দক্ষিণ তরপুর চন্ডী গ্রামে ১০ অক্টোবর ১৯৩০ সালে জন্মগ্রহণ করেন মেহেরজান বিবি। তার বাবা ইব্রাহীম উকিল, মা বিবি হনুফা। তারা ছিলে
বিশ্বনাথে সাংবাদিকের পিতার ইন্তেকাল

বিশ্বনাথে সাংবাদিকের পিতার ইন্তেকাল

সিলেট
বিশ্বনাথ প্রতিনিধি:: দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন ও বিশ্বনাথে সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিইউজে) সভাপতি, শেখ হাবিব উল্লা মাস্টা দাখিল মাদরাসার সহ-সুপার সাইফুল ইসলাম বেগ এর পিতা উপজেলার বাউসী গ্রামের সমাজসেবক, প্রবীণ মুরব্বী সতন বেগ (৬০) ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নানিল্লহি—-রাজিউন)। তিনি আজ শনিবার ভোর বেলায় হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন। মৃত্যুকালে তিনি ৪ ছেলে, ৩ মেয়েসহ অসংখ্যক আত্বীয় স্বজন রেখে গেছেন। মরহুমের জানাযার নামাজ শনিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় উপজেলার বাউসী গ্রামের অনুষ্ঠিত হয়। জানাযার নামাজ শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থান দাফন করা হয়।
যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুল রশিদের বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা

যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুল রশিদের বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা

প্রবাস
যুক্তরাজ্য প্রবাসী আব্দুল রশিদ বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, পুরানো সব হতাশা, গ্লানি আর জরাজীর্ণতা ধুয়ে মুছে গেলো চৈত্রের শেষ সূর্য ডুবির সঙ্গে সঙ্গে। ভোরের সূর্যোদয়ের সঙ্গে সঙ্গে সূচনা হবে নতুন একটি বছরের। সেই সঙ্গে বোনা হবে নতুন নতুন স্বপ্নের। আজকের সূর্যোদয়ের মধ্য দিয়ে সূচনা হলো বাংলা ১৪২৫ সালের। এলো পহেলা বৈশাখ। বাংলার ঘরে ঘরে আজ উৎসব হবে। সব জনপদ, লোকালয়, সমতলে, পাহাড়ে বর্ণিল রঙে রাঙাবে বাংলা। প্রাণে প্রাণ মিলে মেতে উঠবে বৈশাখী উল্লাসে। আজকের এই সার্বজনীন উৎসব অক্ষুন্ন থাকুক বছর জুড়ে। সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন।
যুক্তরাজ্য যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল খানের নববর্ষের শুভেচ্ছা

যুক্তরাজ্য যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল খানের নববর্ষের শুভেচ্ছা

প্রবাস
যুক্তরাজ্য যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাবুল খান সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন, আনন্দের হোক নতুন বছর সবার জন্য. এসো হে বৈশাখ আজ পহেলা বৈশাখ, বাংলা নববর্ষ। বাঙালি সংস্কৃতির প্রধান উৎসব। প্রাণে প্রাণ মেলানোর উৎসব। জীর্ণ পুরনোকে ভাসিয়ে দিয়ে নতুন করে যাত্রা শুরুর দিন। ধর্ম, বর্ণ, শ্রেণী নির্বিশেষে সবার উৎসবমুখর হয়ে ওঠার দিন। কবির ভাষায় আজ নব আনন্দে জাগুক প্রাণ। নতুন সূর্যের সামনে বাঙালি আজ প্রণতি রাখবে “জীর্ণপুরাতন যাক ভেসে যাক, মুছে যাক গ্লানী'/তাপস নিঃশ্বাস বায়ে মুমূর্ষুরে ... এই উৎসবের মূল বাণী হলো নতুন বছরে আমার আনন্দটুকু সবার আনন্দ হোক, আমার শুভটুকু সকলের শুভ হয়ে উঠুক। সবার সঙ্গে আমার যোগ হোক প্রীতিময়, হোক গভীরতর। সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।  
যুক্তরাজ্য যুবলীগ নেতা মাছুম আহমদের নববর্ষের শুভেচ্ছা

যুক্তরাজ্য যুবলীগ নেতা মাছুম আহমদের নববর্ষের শুভেচ্ছা

প্রবাস
যুক্ত রাজ্য যুবলীগ নেতা মাছুম আহমদ সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। তিনি এক বিজ্ঞপ্তিতে বলেন বাঙালির জীবনে আজ এক নতুন দিন, নতুন বারতা। আজকের সূর্যোদয়ের মধ্য দিয়ে সূচনা হলো বাংলা ১৪২৫ সালের। এলো পহেলা বৈশাখ। বাংলার ঘরে ঘরে আজ উৎসব হবে। সব জনপদ, লোকালয়, সমতলে, পাহাড়ে বর্ণিল রঙে রাঙাবে বাংলা। প্রাণে প্রাণ মিলে মেতে উঠবে বৈশাখী উল্লাসে। আজকের এই সার্বজনীন উৎসব অক্ষুন্ন থাকুক বছর জুড়ে। সবাইকে নববর্ষের শুভেচ্ছা।
লুটন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেলের নববর্ষের শুভেচ্ছা

লুটন যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেলের নববর্ষের শুভেচ্ছা

এক্সক্লুসিভ, প্রবাস
যুক্তরাজ্য যুবলীগ লুটন শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেল আহমেদ বাংলা নববর্ষ ১৪২৫'র দল-মত-জাতি-ধর্ম-বর্ন নির্বশেষে সবাইকে বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা ও অভিনন্দন জানিয়েছেন। এক বিজ্ঞপ্তিতে তিনি জানান- নতুন বছরের নতুনের পথে যাত্রা শুরু হউক সমগ্র বাঙ্গালী জাতির। নতুন বছরের প্রতিটি দিন সবার জন্য নিয়ে আসুক সুখকর বার্তা। সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির বাংলাদেশের পুণ্যভূমি সিলেটে নতুন বছরে সকলের মধ্যে বিদ্যমান সম্প্রীতি ও ভ্রাতৃত্ববোধ আরো সুদৃঢ় হউক। রাসেল আহমেদ নতুন বছরে সকলের সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করেন।
দেশবিরোধী অশুভশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে : সেতুমন্ত্রী

দেশবিরোধী অশুভশক্তিকে প্রতিহত করতে হবে : সেতুমন্ত্রী

জাতীয়
নতুন বছরে দেশবিরোধী সব অশুভশক্তিকে প্রতিহত করার আহ্বান জানিয়ে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন, 'দেশবিরোধী একটি চক্র এখনও ষড়যন্ত্র করছে। জনগণকে সঙ্গে নিয়ে তাদের প্রতিরোধ করতে হবে।' আজ শনিবার সকালে রাজধানীর পুরান ঢাকার ভিক্টোরিয়া পার্কে মহানগর আওয়ামী লীগ আয়োজিত শোভাযাত্রা উদ্বোধনকালে তিনি এ আহ্বান জানান। মন্ত্রী বলেন, 'বাঙালি জাতির বীরত্বগাথা ইতিহাস যেমন রয়েছে, তেমনি রয়েছে বিশ্বাসঘাতকের ইতিহাসও। বিশ্বাসঘাতক চক্র বারবার বাঙালির বীরত্বগাথার ইতিহাস কেড়ে নিতে চেয়েছে।' তিনি আরো বলেন, 'এখনও একটি চক্র বীরত্বগাথার ইতিহাস মুছে ফেলার ষড়যন্ত্র করছে। তাদের প্রতিরোধ করতে হবে। নতুন বছরে যেন কোনও অশুভশক্তি ষড়যন্ত্র করতে না পারে, সে লক্ষ্যে সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।' ওবায়দুল কাদের বলেন, 'তারুণ্যের যে উচ্ছ্বাস আমরা দেখতে পাচ্ছি। আমাদের বিশ্বাস তারুণ্য সাম্প্রদায়িক অশুভশক্তির মোকাবিল
আজ পবিত্র শবে মেরাজ

আজ পবিত্র শবে মেরাজ

জাতীয়
আজ পবিত্র শবে মেরাজ। ৬২০ খ্রিস্টাব্দে ২৬ রজব রাতে মহানবী (সা.) আল্লাহর সান্নিধ্য পেতে বিশেষ ব্যবস্থায় ঊর্ধ্বকাশে যান। সেখানে হযরত আদম (আ.)সহ উল্লেখযোগ্য নবীদের সঙ্গে মহানবী (সা.)-এর সালাম বিনিময় হয়। তারপর তিনি সিদরাতুল মুনতাহায় উপনীত হন। এ পর্যন্ত হযরত জিবরাইল (আ.) তার সঙ্গী ছিলেন। সেখান থেকে তিনি একা রফরফ নামক বিশেষ বাহনে ৭০ হাজার নূরের পর্দা পেরিয়ে আরশে আজিমে মহান আল্লাহতায়ালার সান্নিধ্য লাভ করেন। এরপর পাঁচওয়াক্ত নামাজের হুকুম নিয়ে ফিরে আসেন পৃথিবীতে। একই সময়ে মহানবী (সা.) সৃষ্টি জগতের সবকিছুর রহস্য অবলোকন করেন। আরবি ভাষায় মেরাজ অর্থ হচ্ছে সিঁড়ি। আর ফার্সি ভাষায় এর অর্থ ঊর্ধ্ব জগতে আরোহণ। মেরাজ সম্পর্কে পবিত্র কোরআনের সূরা বনিইসরাইলে বলা হয়েছে (আয়াত ১) : ‘তিনি পরম পবিত্র ও মহিমাময়, যিনি রাতে স্বীয় বান্দাকে মসজিদুল হারাম থেকে মসজিদুল আকসা পর্যন্ত নিয়ে গেলেন। যার চার
নববর্ষের শুভেচ্ছা

নববর্ষের শুভেচ্ছা

ওসমানীনগর
এসো হে বৈশাখ আজ পহেলা বৈশাখ, বাংলা নববর্ষ। বাঙালি সংস্কৃতির প্রধান উৎসব। প্রাণে প্রাণ মেলানোর উৎসব। জীর্ণ পুরনোকে ভাসিয়ে দিয়ে নতুন করে যাত্রা শুরুর দিন। ধর্ম, বর্ণ, শ্রেণী নির্বিশেষে সবার উৎসবমুখর হয়ে ওঠার দিন। কবির ভাষায় আজ নব আনন্দে জাগুক প্রাণ। নতুন সূর্যের সামনে বাঙালি আজ প্রণতি রাখবে “জীর্ণপুরাতন যাক ভেসে যাক, মুছে যাক গ্লানী’/তাপস নিঃশ্বাস বায়ে মুমূর্ষুরে দাও উড়ায়ে’ । বাঙালি সংস্কৃতির এক অসাধারণ ব্যঞ্জনা নিয়ে আমাদের দুয়ারে এবারের নববর্ষ সমুপস্থিত। প্রাণে প্রাণে হিল্লোল জাগাতে, মনে-মনে ঐকতান রচনা করতে আর মানুষে মানুষে বিভেদ ঘুচাতে নববর্ষ নব চেতনায় স্নাত করে সবাইকে। সেই কাকডাকা ভোরে পূর্ব দিগন্তে বছরের প্রথম দিনের সূর্যোদয়ের অপেক্ষায় বাঙালি চিত্ত অধীর হয়। আর সে সূর্য অতি সন্তর্পণে বসন্তের শেষ দিবসের কুহেলিকা ভেদ করে ১লা বৈশাখে তার হাসিরচ্ছটায় বাঙলার প্রকৃতিতে তার নবীন রূপ