Friday, January 31

Day: April 27, 2018

চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির ‘অনানুষ্ঠানিক’ বৈঠক

চীনা প্রেসিডেন্টের সঙ্গে নরেন্দ্র মোদির ‘অনানুষ্ঠানিক’ বৈঠক

প্রবাস
চীনের প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং-এর সঙ্গে ‘অনানুষ্ঠানিক’ বৈঠক করেছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। দুই দিনের সফরে শুক্রবার সকালে তিনি চীনে পৌঁছান। ডোকলাম ঘিরে দুই দেশের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি হওয়ার ৭২ দিন পর দুই দেশের প্রধানরা মিলিত হলেন। চীনের হুবেই প্রদেশের রাজধানী উহানে বৈঠকের আগে প্রেসিডেন্ট জিনপিং-এর সঙ্গে মোদি উহানের ঐতিহ্যবাহী জাদুঘর ঘুরে দেখেন। নরেন্দ্র মোদি আগামী বছর ভারতে একই রকম আরেকটি অনানুষ্ঠানিক শীর্ষ সম্মেলন করার প্রস্তাব দিয়েছেন।
কিছু ধারা বাতিলের দাবি টিআইবির

কিছু ধারা বাতিলের দাবি টিআইবির

জাতীয়
সরকারি কর্মচারী আইনের খসড়ায় কর্মকর্তাদের গ্রেফতারের আগে পূর্বঅনুমতির বিধানসহ বেশকিছু বিতর্কিত ধারা সম্পর্কে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি)। দক্ষ, জনবান্ধব, স্বচ্ছ ও জনপ্রশাসনে জবাবদিহি নিশ্চিতে খসড়া আইনটির বেশকিছু ধারা বাতিলের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের প্রতি আহ্বান জানিয়েছে টিআইবি। শুক্রবার এক বিবৃতিতে এই উদ্বেগ ও আহ্বান জানিয়ে টিআইবি বলেছে, গণমাধ্যমে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী দীর্ঘ প্রতীক্ষিত ‘সরকারি কর্মচারী আইন, ২০১৮’ এর খসড়ার বিভিন্ন ধারা বিশ্লেষণের জন্য মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ কর্তৃক গঠিত উপ-কমিটির প্রতিবেদনে বেশকিছু বিতর্কিত ধারা অন্তর্ভুক্ত হয়েছে। টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, ‘খসড়া সরকারি চাকরি আইনে (২০১৮) নতুন প্রস্তাবনা অনুযায়ী ফৌজদারি অপরাধে অভিযুক্ত সরকারি কর্মকর্তাকে গ্রেফতারের আগে পূর্বানুমতি গ্রহণ, এক বছরের বে
মেয়াদোত্তীর্ণ চুক্তিতে চলছে চা বাগান

মেয়াদোত্তীর্ণ চুক্তিতে চলছে চা বাগান

সিলেট
সিলেট প্রতিনিধি:: প্রতি দুই বছর পর পর চা শ্রমিকদের সংগঠন চা শ্রমিক ইউনিয়নের সাথে চুক্তি করে মালিকদের সংগঠন চা সংসদ। প্রতি চুক্তিতেই শ্রমিকদের মজুরী ১৫-১৬ টাকা বৃদ্ধি করা হয়। এই চুক্তিতেই আগামী দু’বছরের জন্য নির্ধারিত হয় শ্রমিকদের বেতন, মজুরি, বোনাসসহ বিভিন্ন সুযোগ-সুবিধা। ২০১৫ সালে শ্রমিক সংগঠনের সাথে সর্বশেষ চুক্তি করে মালিক পক্ষ। এতে ১৬ টাকা বাড়িয়ে বৃদনিক মজুরী ৮৫ টাকা নির্ধারিত হয়। ২০১৬ সালের ডিসেম্বরে এই চুক্তির মেয়াদ শেষ হয়েছে। এরপর কেটে যাচ্ছে আরও প্রায় দেড় বছর। তবে এখনও শ্রমিকদের সাথে চুক্তি নবায়ন করেনি মালিকপক্ষ। এতে করে বেতন ভাতা বাড়ানোর সুযোগ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে দরিদ্র চা শ্রমিকরা। দেড় বছরেও চুক্তি নবায়ন না হওয়ায় ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছেন শ্রমিকরা। মজুরি বৃদ্ধি, চুক্তি নবায়ন ও বকেয়া পরিশোধের দাবিতে আন্দোলনে নেমেছেন তাঁরা। বাংলাদেশ চা শ্রমিক ইউনিয়নের ডাকে বুধবার সকাল
পংকজের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

পংকজের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা

সিলেট
ধর্ষণ মামলায় তারাপুর চা বাগানের সেবায়েত আলোচিত পংকজ কুমার গুপ্তের বিরুদ্ধে গ্রেফতারী পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত। গত মঙ্গলবার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল সিলেটের বিচারক মো. মোহিতুল হক এনাম চৌধুরী আসামীর বিরুদ্ধে পরোয়ানা জারি করেন। বাদী পক্ষের আইনজীবী শাহ কামাল মুহাম্মদ তৈয়ব জানান, মামলার বাদী জালালাবাদ রাগীব-রাবেয়া মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের ৪র্থ শ্রেণীর এক কর্মচারী। তিনি তারাপুর চা বাগানের অভ্যন্তরে মেডিকেল কলেজের হোস্টেলের পেছনে একটি টিনসেড ঘরে বসবাস করতেন। তার স্বামী অন্য চাকরি নিয়ে ঢাকায় বসবাস করেন। চার বছরের ছেলেকে নিয়ে ভিকটিম ঐ ঘরেই বসবাস করে আসছিলেন। ২০১৭ সালের ২৭ নভেম্বর সকালে তারাপুর এলাকার বাসিন্দা রাজেন্দ্র লাল গুপ্তের পুত্র পংকজ কুমার গুপ্ত (৫০) ওই মহিলার ঘরে আসেন। পংকজ তিন মাসের বকেয়া বিদ্যুৎ বিল প্রসঙ্গে তার সাথে কথা বলেন। এ বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনার জন্য ভিকটি
অস্ট্রেলিয়ায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

অস্ট্রেলিয়ায় ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়, প্রবাস
অস্ট্রেলিয়ায় বেশ ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।  সেখানে হোটেল কক্ষেই তিনি দেখা করেন ভিয়েতনামের ভাইস প্রেসিডেন্টের সঙ্গে। সৌজন্য সাক্ষাৎ করেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গেও। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এবং ভিয়েতনামের ভাইস প্রেসিডেন্ট ড্যান থাই নগক থিন ‘গ্লোবাল সামিট অব উইমেন’ সম্মেলনে যোগ দিতে বর্তমানে অস্ট্রেলিয়ায় অবস্থান করছেন। ২০২০-২০২১ মেয়াদে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদে (ইউএনএসসি) সদস্য পদে প্রার্থীতার পক্ষে বাংলাদেশের সমর্থন প্রত্যাশা করেছে ভিয়েতনাম। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে ভিয়েতনামের ভাইস প্রেসিডেন্ট ড্যাং থাই নাগক থিন সৌজন্য সাক্ষাতকালে এই প্রত্যাশা ব্যক্ত করেন। বৈঠকের পরে পররাষ্ট্র সচিব মো. শহীদুল হক সাংবাদিকদের ব্রিফ করেন। ভিয়েতনামের ভাইস প্রেসিডেন্ট প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড-২০১৮তে ভূষিত হওয়ায় অ
‘গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

‘গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ করলেন প্রধানমন্ত্রী

জাতীয়, প্রবাস
অস্ট্রেলিয়ার সিডনিতে ‘গ্লোবাল উইমেন লিডারশিপ অ্যাওয়ার্ড’ গ্রহণ করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুক্রবার সন্ধ্যায় সিডনিতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই পুরস্কার গ্রহণ করেন। এসময় রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নেয়ার ব্যাপারে বাংলাদেশকে সব ধরনের সহযোগিতার আশ্বাস দেন অস্ট্রেলিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী জুলি বিশপ। অস্ট্রেলীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রায় ১০ লাখের অধিক রোহিঙ্গাকে বাংলাদেশে আশ্রয় প্রদানে শেখ হাসিনার ভূমিকার প্রশংসা করেন। অস্ট্রেলিয়া এ বিষয়ে বাংলাদেশের পাশে থাকবে বলে উল্লেখ করেন তিনি। জুলি বিশপ শেখ হাসিনাকে নারী মুক্তি এবং নারীর ক্ষমতায়নে বিশ্ব নারীদের জন্য অনুপ্রেরণাদায়ক এবং সাহসী নেতা হিসেবে আখ্যায়িত করেন। দেশের রাজনীতিতে এবং জাতীয় সংসদে নারীদের অংশগ্রহণ বাড়ানো এবং সেই সাথে প্রশাসন, বিচার বিভাগ, আইন শৃঙ্খলা বাহিনীতে নারীদের সম্পৃক্ততা বৃদ্ধিতে প্রধানমন্ত্রী এসময় তার বিভিন্ন
মুসলমানদের নেক আমল থেকে দূরে রাখার চেষ্টা যারা করে তারা শয়তানেরই দোসর – মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

মুসলমানদের নেক আমল থেকে দূরে রাখার চেষ্টা যারা করে তারা শয়তানেরই দোসর – মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী

সিলেট
বাংলাদেশ আনজুমানে আল ইসলাহর সভাপতি হযরত মাওলানা হুছামুদ্দীন চৌধুরী ফুলতলী বলেছেন, বর্তমান সময়ে কিছু জ্ঞানপাপী মুসলমানদের নানা বাহানায় নেক আমল থেকে দূরে রাখার চেষ্টা করছে। শবে বরাতের মতো বরকতময় রাতে মানুষকে আমল থেকে বিরত রাখছে। তারাবীহর নামায বিশ রাকাত থেকে আট রাকাতে কমিয়ে আনছে। এরা আসলে শয়তানেরই দোসর। তিনি বলেন, শবে বরাতে নিজে আমল করতে না পারে। কিন্তু তা অস্বীকার করা কিংবা এ বিষয়ে কোন বর্ণনা নেই বলা মূর্খতার শামিল। কেননা বিশুদ্ধ বহু হাদীসগ্রন্থে এ সম্পর্কে বর্ণনা রয়েছে। এমনকি যারা শবে বরাত অস্বীকার করে তাদের মান্যবর ব্যক্তিরাও এ রাতের ফযিলত স্বীকার করেছেন এবং এ বিষয়ে সহীহ হাদীস রয়েছে তাও স্বীকার করেছেন। শুধু জ্ঞানপাপীদের কথায় আমাদের বিভ্রান্ত না হয়ে শবে বরাত বা এ ধরণের মকবুল রাতসমূহে আমাদের নেক আমলে মনোনিবেশ করতে হবে। পাশাপাশি অপ্রয়োজনীয় ও অনর্থক কাজ ও কুসংস্কার থেকে বেঁচে থাক
সিলেটে ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা

সিলেটে ব্যবসায়ীকে গলা কেটে হত্যা

সিলেট
সিলেটের বিয়ানীবাজার উপজেলায় এক কাপড় ব্যবসায়ীর গলাকাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার চারখাই গাছতলা এলাকায় সহিব উদ্দিন সৈবন আহমদ (৫০) নামের ওই ব্যক্তির লাশ পাওয়া যায় বলে জানিয়েছেন বিয়ানীবাজার থানার ওসি শাহজালাল মুন্সী। নিহত সহিব উদ্দিন সৈবন আহমদ বিয়ানীবাজার পৌরশহরের জামান প্লাজার আবরনী বস্ত্র বিতানের মালিক। তার বাড়ি মৌলভীবাজারের বড়লেখা উপজেলার ইটাউরী গ্রামে। তিনি দীর্ঘদিন ধরে বিয়ানীবাজার পৌরসভার দাসগ্রাম এলাকায় বসবাস করছেন। ওসি জানান, সকালে স্থানীয়রা রাস্তার পাশে রক্তাক্ত অবস্থায় সহিবের লাশ দেখে পুলিশে খবর দিলে চারখাই ফাঁড়ির পুলিশ লাশটি উদ্ধার করে। “ধারণা করা হচ্ছে গলা কেটে হত্যার পর লাশ এখানে ফেলে যায় দুর্বৃত্তরা। প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে পূর্ব বিরোধ অথবা অন্য কোনো কারণে ব্যবসায়ী সহিবকে হত্যা করা হয়েছে।” তবে কী কারণে কে বা কারা তাকে হত্যা করেছে তাৎ
ফেসবুকের টাইমলাইন জীবন বৃত্তান্তের মতো

ফেসবুকের টাইমলাইন জীবন বৃত্তান্তের মতো

তথ্যপ্রযুক্তি
বয়স যাদের ত্রিশের নীচে; তারা সম্ভাবনাময় প্রজন্ম। সুতরাং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের ক্ষেত্রে তাদের খুবই সচেতন থাকা ও নৈতিকতা প্রদর্শন জরুরী। ফেসবুকের টাইমলাইন হচ্ছে জীবন বৃত্তান্তের মতো। এখানে একজন মানুষ যা লেখে; তা থেকে তার মনের ও চিন্তার এক্সরে রিপোর্ট পাওয়া যায়। সুতরাং সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ব্যবহারের সময় কোন ব্যক্তি-গোষ্ঠী-ধর্ম-দল-লিঙ্গ-বর্ণ নির্বিশেষে কারো প্রতি বিদ্বেষ বা ঘৃণা প্রকাশ অনৈতিক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম যেহেতু পাবলিক স্পেস; এখানে কথা বলার সময় অশোভন বা অশালীন শব্দ-বাক্য ব্যবহার নিম্ন ও গর্হিত রুচির পরিচয়। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে কোন রকম গুজব বা ফেইক নিউজ ছড়ানো বা শেয়ার করা; অত্যন্ত নেতিবাচক মানসিকতার পরিচায়ক। গুজব ও ফেইক নিউজ সামাজিক শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তার জন্য ক্ষতিকর। তাই কেবলমাত্র আস্থা অর্জনকারী সংবাদ মাধ্যমের খবর শেয়ার করা বাঞ্ছনীয়। আর নিজ
মরণ যারে বন্দনা করে বিনীত করজোড়ে!

মরণ যারে বন্দনা করে বিনীত করজোড়ে!

এক্সক্লুসিভ
সময়টা ১৯০৭ সালের শেষের দিক। ব্রিটিশ ভারতের স্বাধীনতার ইতিহাসে যে সময়টি চিহ্নিত হয়ে আছে অগ্নিযুগ হিসেবে। নিয়মতান্ত্রিক রাজনৈতিক আন্দোলনের প্রতি অবিশ্বাস দেখা দেয় তৎকালীন তরুণ সমাজের একটি অংশের মধ্যে। ক্রমশ তাদের মধ্যে একটি বদ্ধমূল ধারণা গড়ে ওঠে যে ক্ষাত্রশক্তি ব্যতীত রাজনৈতিক মুক্তি সম্ভব নয়। অর্থাৎ মাতৃভূমির শৃঙ্খল মোচনের একমাত্র পথ হলো সশস্ত্র সংগ্রাম।কিন্তু সুপ্রশিক্ষিত ইংরেজ সেনাদের বিরুদ্ধে সরাসরি সম্মুখ যুদ্ধে অংশ নেয়ার মতো শক্তি ছিলোনা তাদের। তাই তারা বেছে নেন পলিটিকাল এসোনিসেশন বা রাজনৈতিক গুপ্তহত্যার পথ। সিক্সবোর রিভলভার আর দেশীয় হাতবোমা দিয়ে রাইফেল আর মেশিনগান সজ্জিত ইংরেজ বাহিনীর মোকাবেলা করা অসম্ভব বিধায় তারা বেছে নেন গুপ্তহত্যার মাধ্যমে ব্রিটিশদের।মধ্যে আতংক সৃষ্টি করার পদ্ধতি যাতে তারা দ্রুত পালায় ভারত ছেড়ে।এই কারণে অনেকে আবার এই আন্দোলনকে "সন্ত্রাসবাদী আন্দোলন "ও