Friday, January 31

Day: May 23, 2018

জনগন শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় চায়: আব্দুস শহীদ

জনগন শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় চায়: আব্দুস শহীদ

সিলেট
কমলগঞ্জ প্রতিনিধি::সাবেক চিফ হুইপ উপাধ্যক্ষ ড. মো: আব্দুস শহীদ এমপি বলেছেন, আমরা উন্নয়নে বিশ্বাসী। শেখ হাসিনার সরকার উন্নয়নের সরকার। আওয়ামীলীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে তখনই দেশের উন্নয়ন হয়েছে। দেশজুড়ে উন্নয়নের কারণে দেশবাসী শেখ হাসিনাকে আবারও ক্ষমতায় দেখতে চায়। তিনি সকল ভেদাভেদ ভুলে ঐক্যবদ্ধ ভাবে দেশের মানুষের কল্যাণে এগিয়ে আসার জন্য দলীয় নেতাকর্মীদের প্রতি আহবান জানান। মঙ্গলবার দুপুরে মৌলভীবাজারের কমলগঞ্জ-শ্রীমঙ্গল আর এইচ ডি-ফুলবাড়ী চা বাগান ভায়া ফুলবাড়ী জিপিএস সড়ক নির্মাণ কাজের উদ্বোধনকালে তিনি এসব কথাগুলো বলেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কমলগঞ্জ  উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি এম, মোসাদ্দেক আহমেদ মানিক, কমলগঞ্জ পৌরসভার মেয়র জুয়েল আহমেদ, উপজেলা প্রকৌশলী কিরণ চন্দ্র দেবনাথ, উপজেলা বিআরডিবির চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ আহমেদ বুলবুল, কমলগঞ্জ সদর ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান,  যুবলীগ
অর্থমন্ত্রী খুঁজছেন প্রধানমন্ত্রী

অর্থমন্ত্রী খুঁজছেন প্রধানমন্ত্রী

এক্সক্লুসিভ
বাজেট প্রস্তুতি নিয়ে ব্যস্ত সময় কাটাচ্ছেন মন্ত্রিসভার প্রবীণতম সদস্য অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। প্রতিদিনই থাকছে বাজেট নিয়ে নানা সংলাপ। বাজেটের নানা দিক নিয়ে নিজ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক ছাড়াও প্রায়ই প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে বাজেটের খুঁটিনাটি নিয়ে কথা বলতে হচ্ছে। এসব বৈঠকে অর্থমন্ত্রী বারবার বলছেন, এটাই তাঁর শেষ বাজেট। বাজেট সংলাপের অনেকগুলিই বিদায় অনুষ্ঠানে পর্যবসিত হচ্ছে। আগামী ৭ জুন অর্থমন্ত্রী হিসেবে সম্ভবত তাঁর শেষ বাজেট দেবেন আবুল মাল আবদুল মুহিত। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাও এটা মেনে নিয়েছেন। একনেকের বৈঠকেও প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, নতুন অর্থমন্ত্রী খুঁজছি। নতুন অর্থমন্ত্রী হিসেবে কাকে নেওয়া যায়, এ নিয়ে প্রধানমন্ত্রী অনেকের সঙ্গেই কথা বলছেন। সরকারি সূত্রগুলো বলছে, আগামী অক্টোবরে নির্বাচন কমিশন জাতীয় সংসদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করবে। এর সঙ্গে সঙ্গেই বর্তমান সর
বন্ধু যখন শত্রু!

বন্ধু যখন শত্রু!

এক্সক্লুসিভ
আওয়ামী লীগের কারণেই তাঁদের উত্থান ও পরিচিতি। আওয়ামী লীগ সভাপতির ব্যক্তিগত স্নেহে তারা আলোচিত। কিন্তু হঠাৎই যেন ছন্দপতন। তারাই এখন আওয়ামী লীগ বিরোধিতা করেন, প্রকাশ্যে-গোপনে আওয়ামী লীগ সরকারের সমালোচনা করেন। তাঁদের বিরুদ্ধে রয়েছে বিশ্বাস ভাঙার অভিযোগ। তারা দূরে সরে গেছেন। বন্ধু থেকে পরিণত হয়েছেন শত্রুতে। কিন্তু কেন? আওয়ামী লীগের সঙ্গে ঘনিষ্ঠতার সম্পর্ক রেখে যারা সরকারের ক্ষতি করার চেষ্টা করেছেন, তাদের তালিকায় প্রথম নামটি আসে সাবেক প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার। বিচারপতি সিনহা দুর্নীতির অভিযোগে ওয়ান ইলেভেনের সময় চাকরি হারাতে বসেছিলেন। তাঁকে পদত্যাগের জন্য বঙ্গভবনে চায়ের দাওয়াত দেওয়া হয়েছিল। কিন্তু সেখান থেকে কোনোভাবে তিনি পালিয়ে আসেন। ২০০৮ সালে আওয়ামী লীগ সরকার ক্ষমতায় এলে তিনি প্রথমে আপিল বিভাগের বিচারপতি, তারপর প্রধান বিচারপতি হিসেবে দায়িত্ব পান। শেখ হাসিনার এক
বেগম জিয়ার কাছের মানুষরা কেন দূরে?

বেগম জিয়ার কাছের মানুষরা কেন দূরে?

রাজনীতি
৮২ সাল থেকেই বেগম জিয়ার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারের শুরু। তাঁর দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে তিনি কিছু ‘বিশ্বস্ত অনুগামী’ বেছে নিয়েছিলেন। যাঁদের বলা হতো বেগম জিয়ার ‘কাছের মানুষ’। এদের পদ-পদবী যাই হোক খালেদা জিয়ার কাছে এদের প্রবেশাধিকার ছিল অবারিত। বেগম জিয়ার বিশ্বস্ত হিসেবে এদের ক্ষমতা এবং প্রভাব ছিল অনেক বেশি। কিন্তু বেগম জিয়া দু:সময়ে এই সব কাছের মানুষদের খবর নেই। তাঁরা থেকেও নেই। বেগম জিয়ার জন্য এদের কোনো সহানুভূতির প্রকাশও আমাদের নজরে আসেনি। মোসাদ্দেক আলী ফালু বেগম জিয়ার সবচেয়ে বিশ্বস্তদের একজন হিসেবে পরিচিত। ফালু রাজনীতিতে আলোচিত হয়েছেন বেগম জিয়ার ঘনিষ্ঠতার সূত্রেই। বেগম জিয়া রাজনীতিতে আসেন এক কঠিন সময়ে। এ সময় বিএনপিতে বিভক্তি আর কোন্দল। প্রায়ই এসব কোন্দল মারামারি আর সংঘর্ষে রূপ নিতো। এ সময়ই মির্জা আব্বাস নিয়ে আসেন মোসাদ্দেক আলী ফালুকে। ফালু বেগম জিয়ার একান্ত সচিব কাম দেহরক্ষী
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এশিয়ার চতুর্থ বর্ষীয়ান নেতা

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এশিয়ার চতুর্থ বর্ষীয়ান নেতা

এক্সক্লুসিভ, জাতীয়
জ্যেষ্ঠতার বিচারে এশিয়া মহাদেশের চতুর্থ নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তার বয়স এখন ৭০ বছর। ৩৭ বছর ধরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করছেন। এর মধ্যে তিন মেয়াদে প্রায় ১৪ বছর সরকারপ্রধান তিনি। সে ক্ষেত্রে অভিজ্ঞ রাজনীতিক হিসেবে তিনি বিশ্বে সমাদৃত। অন্যদিকে, বয়সের দিক থেকে এশিয়া ও বিশ্বে সবচেয়ে প্রবীণ নেতা এখন মালয়েশিয়ার মাহাথির মোহাম্মদ। সম্প্রতি ৯২ বছর বয়সে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে শপথ নিয়ে  এই রেকর্ডের অদ্বিতীয় মালিক হয়েছেন তিনি। ভারতের ডাটা লিডস নামে একটি প্রতিষ্ঠান বিশ্বনেতাদের বয়সের তুলনামূলক এই চিত্র তুলে ধরেছে। বিশ্নেষণে বলা হয়েছে, শেখ হাসিনার পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের নেতৃত্ব দেন এবং তিনি বর্তমানে তার রাজনৈতিক উত্তরসূরি। দুটি সামরিক শাসনামলের বিরুদ্ধে লড়াই করে এখনও টিকে আছেন তিনি। টাইম ম্যাগাজিনের বিশ্বের ১০০ প্রভাবশালী
রাখাইনে ৯৯ হিন্দুকে মেরেছে আরসা: অ্যামনেস্টি

রাখাইনে ৯৯ হিন্দুকে মেরেছে আরসা: অ্যামনেস্টি

প্রবাস
রোহিঙ্গা বিদ্রোহী গোষ্ঠী আরাকান স্যালভেশন আর্মি-আরসার হাতে গত বছর অগাস্টে রাখাইনে শিশুসহ অন্তত ৯৯ জন হিন্দু নিহত হয়েছেন বলে অ্যামনেস্টি ইন্টারন্যাশনালের এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে। মানবাধিকার সংস্থাটি এর আগে রোহিঙ্গা মুসলিমদের উপর মিয়ানমারের সৈন্যদের বর্বরোচিত হামলার চিত্র তুলে ধরেছিল। এবার রাখাইনের বাসিন্দা হিন্দুদের উপর রোহিঙ্গা বিদ্রোহী গোষ্ঠীর নির্যাতনের চিত্র আনল। অ্যামনেস্টি বলছে, রাখাইনের মধ্যে ও বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকায় তদন্ত করে তারা হিন্দুদের নির্বিচারে হত্যাকাণ্ডের তথ্য-প্রমাণ পেয়েছেন, যাতে আরও হিন্দু গ্রামবাসীকে অপহরণ ও আইন বহির্ভূত হত্যাকাণ্ডের ঘটনাও ঘটে থাকতে পারে। মঙ্গলবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে অ্যামনেস্টির ক্রাইসিস রেসপন্স পরিচালক তিরানা হাসান বলেন, “আরসার কর্মকাণ্ডের নৃশংসতার দিকটি উপেক্ষা করে যাওয়া খুবই কঠিন। তাদের হাত থেকে বেঁচে যাওয়া যেসব ব্যক্তির সঙ্গে আমাদের
সিলেট-১ আসন-এবার আমলা না রাজনীতিবিদ?

সিলেট-১ আসন-এবার আমলা না রাজনীতিবিদ?

সিলেট
সিলেট প্রতিনিধি::প্রচলিত আছে, সিলেট-১ আসনে যে পাস করবে সে-ই দল সরকার গঠন করবে। পরিসংখ্যান এমন ধারণাকে আরো বিশ্বাসযোগ্য করে তুলে। ১৯৯১ সালের সংসদ নির্বাচনে সিলেটের ১৯টি আসনের মধ্যে বিএনপির হয়ে খন্দকার আব্দুল মালিক শুধু সিলেট-১ আসন থেকে বিজয়ী হয়েছিলেন। এরপরও বিএনপিই সরকার গঠন করে। সম্ভবত এসব কারণেই সিলেট থেকে নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করাকে প্রায় সব বড় দলই রীতি হিসেবে নিয়েছে। যথারীতি এবারও সিলেটে মাজার জিয়ারত করে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের প্রচারণা শুরু করেছেন আওয়ামী লীগ সভানেত্রি শেখ হাসিনা, জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহাম্মদ এরশাদসহ কয়েকটি দল। বিএনপি প্রচারণা শুরু না করলেও কারাগারে যাবার আগে বেগম খালেদা জিয়া সদলবলে এসে মাজার জিয়ারত করে গেছেন। প্রধান তিন দলের শীর্ষ নেতার সিলেট সফরের পর থেকে অনেকটা আগেভাগেই সিলেটে বইতে শুরু করেছে নির্বাচনী হাওয়া। মনোনয়ন পে
মরণোত্তর দেহ দান তসলিমার

মরণোত্তর দেহ দান তসলিমার

এক্সক্লুসিভ
নিউজ ডেস্ক::মেডিকেলে গবেষণার কাজে ব্যবহারের জন্য মরণোত্তর দেহ দান করলেন লেখিকা তসলিমা নাসরিন। অবশ্য এর আগে ২০০৫ সালেই কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে তিনি একবার মরণোত্তর দেহ দান করেছিলেন। কিন্তু কলকাতার দরজা তাঁর জন্য বন্ধ উল্লেখ করে নতুন দিল্লিতে মরণোত্তর দেহ দানের বিষয়টি নিজেই জানালেন তসলিমা। মঙ্গলবার (২২ মে) দিল্লির অল ইন্ডিয়া ইন্সটিটিউট অফ মেডিকেল সায়েন্স (এইমস) এ গিয়ে মরণোত্তর দেহ দানের অঙ্গীকারপত্রে সই করে এসেছেন তিনি। এ বিষয়ে  তসলিমা নাসরিন বলেন, মরণোত্তর দেহ দানের মধ্যে দিয়ে অর্গান প্রতিস্থাপনও অন্তর্ভুক্ত। দেহদানের খবর জানিয়ে ফেসবুকের একটি স্ট্যাটাসে তসলিমা নাসরিন লিখেন, ‘মরণোত্তর দেহ দান করেছিলাম কলকাতা মেডিক্যাল কলেজে, ২০০৫ সালে। কিন্তু কলকাতার দরজা তো আমার জন্য বন্ধ। অগত্যা এইমস হাসপাতালেই মরণোত্তর দেহ দানের ব্যবস্থা করলাম।’ এছাড়া এক টুইট বার্তাতেও তসলিমা লিখেন, ‘
কুশিয়ারা ডাইকের বাঁধে ধস!

কুশিয়ারা ডাইকের বাঁধে ধস!

এক্সক্লুসিভ
নিউজ ডেস্ক::নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের পারকুল ও বনগাঁও গ্রামের উত্তর পাশে বয়ে গেছে ঐতিহ্যবাহী কুশিয়ারা নদী। প্রতি বছরই নদীর তীরবর্তী ডাইকের বাঁধে কোন না কোন স্থানে ভাঙ্গন দেখা দেয়। নেয়া হয় বাঁধট নির্মান প্রকল্প। এবারও একই অবস্থা। বাঁধ রক্ষায় নেয়া হয়েছে “কুশিয়ারা রিভার প্রজেক্ট” নামে ১০ লক্ষ ৭৮ হাজার ১ শত ৯৪ টাকার প্রকল্প। স্থানীয় ইউপি সদস্য বাঁধ নির্মাণের পিআইসি সভাপতির বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার যোগসাজসে বাঁধ নির্মানের টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। দাঁয়সারা কাজ ও বাঁধ মেরামতে দুর্নীতির কারণে একদিকে কাজের তদারকির দায়িত্বে থাকার লোকজনদের গাফিলতি না ফিফটি-ফিফটি দুর্নীতি হয়েছে তা নিয়েও এলাকায় চলছে নানা গুঞ্জন। সুত্রে প্রকাশ, নবীগঞ্জ উপজেলার আউশকান্দি ইউনিয়নের পারকুল ও বনগাঁও গ্রামের উত্তর পাশে বয়ে যাওয়া ঐতিহ্যবাহী কুশিয়ারা নদী। ওই নদীর তীরবর্তী পাহাড়পুর নামক
যেভাবে অভিনয়ে এলেন তাজিন আহমেদ

যেভাবে অভিনয়ে এলেন তাজিন আহমেদ

বিনোদন
অভিনেত্রী তাজিন আহমেদের অভিনয়জীবনের শুরু হয় ১৯৯৬ সালে। দিলারা ডলি রচিত ও শেখ নিয়ামত আলী পরিচালিত 'শেষ দেখা শেষ নয়' নাটকে অভিনয়ের মধ্য দিয়ে তার অভিনয়যাত্রা শুরু। নাটকটি ১৯৯৬ সালে বিটিভিতে প্রচার হয়েছিল। এরপর তিনি অসংখ্য নাটক-টেলিছবি দর্শকদের উপহার দিয়েছেন। তিনি দীর্ঘদিন থিয়েটারে অভিনয় করেছেন। তাজিন আহমেদের জন্ম ১৯৭৫ সালের ৩০ জুলাই নোয়াখালী জেলায়। তিনি বেড়ে উঠেছেন পাবনা জেলায়। বাংলাদেশের একজন অভিনেত্রী এবং উপস্থাপক। ঢাকার ইডেন কলেজ থেকে পড়াশোনা করেছেন তাজিন আহমেদ। অভিনয়ের পাশাপাশি মডেলিংয়েও সুনাম অর্জন করেছেন তিনি। খুব ভালো তাজিন আহমেদের লেখার হাতও। অনেক দিন যুক্ত ছিলেন সাংবাদিকতার সঙ্গে। মঙ্গলবার (২২ মে) সকালে হার্ট এটাক করেন তিনি। এরপর হাসপাতালে ভর্তি করা হলে বিকেল ৪টা ২০ মিনিটের দিকে মারা যান এ অভিনেত্রী।